রোহিঙ্গাদের জন্য ‘সেফজোনের’ প্রস্তাব নাকচ

যুক্তরাষ্ট্র সময় শনিবার এবং বাংলাদেশ সময় রবিবার ভোরের দিকে মি. সোয়ে এ ভাষণ দেন
মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের দেশে ফেরাতে ‘সেফজোন’ বা নিরাপদ অঞ্চল গঠনের প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছে।
নিউইয়র্কে স্থানীয় সময় শনিবার রাতে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে এক বিতর্কে মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর কার্যালয়ের মন্ত্রী কোয়ে তিন্ত সোয়ে ওই প্রস্তাব নাকচ করে দেন।

কোয়ে তিন্ত সোয়ে বলেন, রোহিঙ্গাদের জন্য সেফজোন প্রতিষ্ঠার দাবি সমর্থনযোগ্য নয়; কার্যকরীও নয়।

তল্লাশি চৌকিতে হামলার অভিযোগ এনে ২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর দমনপীড়ন শুরু করে মিয়ানমার সোনাবাহিনী। এরপরই সেখান থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আসতে শুরু করে লাখ লাখ রোহিঙ্গা।

ওই বছরের নভেম্বরে বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তি অনুযায়ী রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন হবে বলে জানান কোয়ে তিন্ত। তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়ার ব্যাপারে তাদের জন্য অনুকূল পরিবেশ তৈরিতে অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে।

কোয়ে তিন্ত জানান, রাখাইনে বসবাসরত এসব বাস্তুচ্যুতদের ‘পৃথক আইনি মর্যাদা’ আছে। যারা নাগরিকত্বের পাবে তাদের ‘নাগরিকত্ব কার্ড’ দেয়া হবে। বাকিদের দেয়া হবে ‘ন্যাশনাল ভেরিকেশন কার্ড’।

একই অধিবেশনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, ‘রাখাইন প্রদেশে সুরক্ষা, নিরাপত্তা ও চলাফেরার স্বাধীনতা এবং সামগ্রিকভাবে অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি না হওয়ায় এখন পর্যন্ত একজন রোহিঙ্গাও মিয়ানমারে ফিরে যায়নি’।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here