একাদশে ভর্তি ৯ আগস্ট

ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। এবার শুধু অনলাইনে আবেদন করা যাবে। ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে কলেজে ভর্তির কার্যক্রম আগামী ৯ আগস্ট শুরু হবে। ভর্তির যাবতীয় তথ্য শিক্ষা বোর্ডর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে। ভর্তির আবেদন করা যাবে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

এবার ২০ লাখ ৪০ হাজার ২৮ জন শিক্ষার্থী মাধ্যমিকের চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নেয়, তাদের মধ্যে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন পাস করেছে। সাধারণত আগের বছরের এসএসসি ও সমমান পাস করা শিক্ষার্থীদের একটি অংশও একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হয়ে থাকে। সেই হিসাবে এবার ভর্তিচ্ছু প্রায় ১৯ লাখ। ফল হাতে পাওয়ার পর শিক্ষার্থীদের মধ্যে কলেজে ভর্তির দুশ্চিন্তা ভর করেছে। তাদের সঙ্গে উদ্বিগ্ন বাবা-মা-অভিভাবকও। সবার একটিই প্রশ্ন, ভালো বা পছন্দের কলেজে ভর্তি মিলবে তো? সাধারণত অন্যান্য বছর ফলপ্রকাশের এক সপ্তাহের মধ্যে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়। কিন্তু করোনার কারণে এবার ভর্তি কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বাড়তে থাকায় গত ১৭ মার্চ থেকে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। দুই মাস লকডাউনের পর অফিস-কারখানা-যানবাহন চালু করে কিছু বিধিনিষেধ তুলে দেওয়া হলেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানো হয়েছে ৬ আগস্ট পর্যন্ত। গত ১ এপ্রিল থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরুর কথা থাকলেও মহামারীর কারণে তাও স্থগিত করেছে সরকার।

এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্টরা জানান, এ বছর আবেদন শতভাগ অনলাইনে নেয়া হবে। একাদশ শ্রেণির ভর্তিতে মুক্তিযোদ্ধা, প্রবাসী ও বিকেএসপি কোটা বহাল রেখে অন্যান্য কোটা বাতিল করা হয়েছে। এবারও সর্বোচ্চ ১০টি পছন্দের কলেজ বা মাদরাসায় আবেদন করার সুযোগ রাখা হয়েছে। এর জন্য নেয়া হবে ১৫০ টাকা। ফলে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আর এসএমএস করে ভর্তির জন্য আবেদন করা যাবে না। আগে মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে প্রতিটি আবেদনে ১২০ টাকা ফি নেয়া হতো।

শতভাগ মেধা কোটা ছাড়া সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিশেষ কোটা হিসেবে ৫ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা, শূন্য দশমিক ৫ বিকেএসপি এবং শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ প্রবাসী কোটা বহাল রেখে বিভাগীয় ও জেলা সদর, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধস্তন দপ্তরগুলোর কোটা বাতিল করা হয়েছে।
আজ রোববার (১৯ জুলাই) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের এ তথ্য জানান।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here