সহানুভূতি পেতে নিজের করোনা রিপোর্টও ভুয়া বানিয়েছেন মো. সাহেদ

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস পরীক্ষায় জালিয়াতির ঘটনায় গ্রেপ্তার রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ ওরফে সাহেদ করিম জানিয়েছেন, মানুষের সহানুভূতি পেতে নিজের করোনার রিপোর্টও ভুয়া বানিয়েছিলেন তিনি।

গত বুধবার (১৫ জুলাই) সাহেদকে গ্রেপ্তারের পর বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। সাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদে ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। সাহেদকে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর নিজের করোনা সনদ নিয়ে জালিয়াতির তথ্য বেরিয়ে আসে বলে জানান তদন্ত সংশ্নিষ্ট উচ্চপদস্থ এক কর্মকর্তা।

তদন্ত কর্মকর্তা জানান, করোনা আক্রান্ত অন্যের স্যাম্পল নিজের নামে চালিয়ে সাহেদ করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সনদ নিয়েছেন। যদিও সত্যিই তিনি করোনায় আক্রান্ত হননি। সবার কাছে সহানুভূতি পাওয়া ও রিজেন্টের জালিয়াতি থেকে নিজেকে বাঁচাতে নিজের করোনা আক্রান্ত হওয়া নিয়েও এমন গল্প ফাঁদেন প্রতারণার গুরু সাহেদ।

জানা গেছে, করোনার ভুয়া সনদ তৈরি করতে করোনা সংক্রমিত একজন বিশ্বস্তকর্মীর কাছ থেকে নমুনা নিয়ে সাহেদ তার নমুনা বলে চালিয়ে দেয়ার নির্দেশ দেন। এরপর জাল করোনার সনদ তৈরি করা হয়।

করোনাভাইরাসের পরীক্ষা না করে ভুয়া রিপোর্ট দেয়া, সরকারের কাছে বিল দেয়ার পর আবার রোগীর কাছ থেকেও অর্থ নেয়াসহ রিজেন্ট হাসপাতালে নানা অনিয়মের খবর সম্প্রতি প্রকাশ্য হয়েছে র‌্যাবের অভিযানের মধ্য দিয়ে। গত সপ্তাহে ওই অভিযানের পর রিজেন্টের দুটি হাসপাতাল বন্ধ করে দেয় র‌্যাব। ওই হাসপাতালের অনুমোদনও বাতিল করা হয়েছে।

গোয়েন্দা পুলিশ এখন তাকে দশ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। করোনাভাইরাস পরীক্ষায় জালিয়াতির ঘটনায় দায়ের করা মামলায় বুধবার সকালে সাতক্ষীরা দেবহাটা সীমান্ত এলাকা থেকে সাহেদকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here