উদ্বাস্তুদের জমির স্বত্বাধিকার দেয়ার ঘোষণাও দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

উদ্বাস্তুদের প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, ১২ বছর এক জায়গায় থাকলে সেই জায়গার ওপর বসবাসকারীর একটা অধিকার জন্মায়। পাশাপাশি উদ্বাস্তু পরিবারের জন্য তিন একর পর্যন্ত জমি দেয়ার ঘোষণাও দিলেন।

সোমবার বিকেলে রাজ্য সচিবালয় নবান্ন থেকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন মমতা। কেন্দ্রীয় সংস্থার ৯৭৩ একর ও বেসরকারি সংস্থার ১১৯ একর জমিতে এই সত্ত্ব দেয়া হবে বলে রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর ফলে প্রায় ১১ হাজার ৯৮৬টি পরিবারের ৫৫ হাজার সদস্য উপকৃত হবেন।আনন্দবাজার পত্রিকা

মমতা জানান, রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বন্ধ হওয়া বিভিন্ন কেন্দ্রীয় সংস্থার জমিতে দীর্ঘদিন ধরে যে উদ্বাস্তুরা বসবাস করছেন। তাদের তিন একর পর্যন্ত জমির সত্ত্ব প্রদান করা হবে। মমতা এ প্রসঙ্গে বলেন, ১২ বছর এক জায়গায় থাকলে সেই জায়গার ওপর বসবাসকারীর একটা অধিকার জন্মায়। আর গত প্রায় ৫০ বছর ধরে উদ্বাস্তুরা এই রাজ্যে বসবাস করছেন। ভোটাধিকার বা অন্য সুযোগ-সুবিধা পেলেও এত দিন জমির অধিকার পাননি।

তিনি আরও বলেন, ১৯৭১ সালের মার্চ থেকে নিজের জমি বা নিজের বাড়ি ছিল না তাদের। আমরা বহুবার কেন্দ্রকে এই সমস্যা সমাধানের কথা বলেছি। কিন্তু তারা কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। উল্টো ওই জমি থেকে উদ্বাস্তুদের উচ্ছেদের জন্য মাঝেমধ্যেই নোটিশ পাঠায়। আমার মনে হয় উদ্বাস্তুদের অধিকার আছে। তাই রাজ্য সরকারের তরফে যেখানে তারা বসবাস করেন সেই জমির স্বত্বাধিকার দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

মমতা বলেন, এখনো পর্যন্ত তিন একর পর্যন্ত জমিতে এই সত্ত্ব দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। যদি কারো কাছে তার থেকেও বেশি জমি থাকে তাহলে সরকারিভাবে সমীক্ষা করার পর ওই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

আপরদিকে এই জমি দেয়ার বিষয়র বাস্তবায়নে সমস্যা হতে পারে বলে মন্তব্য আইন বিশেষজ্ঞদের। তাদের মতে, এভাবে কেন্দ্রীয় সংস্থার জমি অন্যের হাতে তুলে দেয়ার বিষয়ে একতরফা সিদ্ধান্ত নেয়া যায় না। কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনার পরেই এটা করা যেতে পারে বলে বিশেষজ্ঞদের অভিমত ।

মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, ৪৮-৫০ বছর ধরে উদ্বাস্তু শরণার্থীরা এখানে আছেন। কিন্তু তাঁরা না ঘরকা না ঘাটকা হয়ে পড়ে রয়েছেন। আমরা আগেও কেন্দ্রকে বলেছি। সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেখানে তাঁদের অধিকার সত্ত্ব দেবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here