জেনে নিন স্ত্রীর বেশি আয় সংসার টেকসই নয় কেন

স্বামীর চেয়ে বেশি উপার্জনকারী স্ত্রী
স্বামীর চেয়ে বেশি উপার্জনকারী স্ত্রী

বিয়ের পর স্বামী কিংবা স্ত্রীর কিছু কিছু সুখবর সংসার জীবনে অশান্তি নিয়ে আসে। করে স্ত্রীর বেশি উপার্জন করলে তা স্বামীর জন্য কষ্টের হয়েযায়।

একটি গবেষণা দেখা গেছে, যে স্ত্রীরা তার স্বামীর আয়ের উপর নির্ভরশীল সেই স্বামীরা মানসিকভাবে বেশি ভালো থাকেন।যেসব স্ত্রী তার স্বামীর চেয়ে বেশি রোজগার করেন সেসব স্বামী মানসিক পীড়ায় ভোগেন।

যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব বাথের একদল গবেষক বেশি রোজগার করা স্ত্রী নিয়ে গবেষণা করেন। গবেষণায় দেখা যায়, যেসব স্বামী তার স্ত্রীর চেয়ে কম রোজগার করেন তারা মানসিক কষ্টে ভোগেন। তবে স্ত্রী যদি বিয়ের আগে থেকে বেশি উপার্জন করেন এবং সামাজিক মর্যাদা যদি বেশি থাকে সেক্ষেত্রে স্বামী মানসিক কষ্টে ভোগেন না। এর কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে, আগে থেকেই স্ত্রীর বেতন এবং পদমর্যাদা সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা থাকায় তা পুরুষকে কষ্ট দেয় না।

স্বামীর চেয়ে বেশি উপার্জনকারী স্ত্রী

স্বামীর চেয়ে বেশি উপার্জনকারী স্ত্রীসংসার জীবনের বয়স যাদের ১৫ বছর হয়েছে এমন ৬ হাজার দম্পতি নিয়ে গবেষণা করা হয়। জরিপে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার দম্পতিদের মধ্যে দেখা যায়, যে নারীরা পুরুষের আয়ের চেয়ে কম আয় করেন এবং সংসারে আয়ের একটা অংশ খরচ করেন সেক্ষেত্রে পুরুষরা মানসিক পীড়ায় কম ভোগেন।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, আমেরিকার প্রায় ৬ হাজার দম্পতির উপর দীর্ঘ পনেরো বছর গবেষণা চালিয়েছেন গবেষকরা। তাদের মতে, যেসব পরিবারে স্ত্রীদের আয় ৪০ শতাংশ ছাড়িয়ে যায়, সেসব পরিবারের স্বামীরা উদ্বিগ্ন হতে শুরু করেন। তবে স্ত্রীরা সাধারণত পরিবারে আর্থিকভাবে সহায়তা করলে স্বামীরা কম চাপে থাকেন।

স্বামীর চেয়ে বেশি উপার্জনকারী স্ত্রী
স্বামীর চেয়ে বেশি উপার্জনকারী স্ত্রী

কিন্তু যখন স্ত্রীর আয় স্বামীর চেয়ে বেশি বা পরিবারের আর্থিক সহায়তায় স্ত্রীর ভূমিকা বেশি থাক, তখন স্বামীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতে শুরু করেন।

ওই গবেষণায় আরও বলা হয়েছে, স্বামীরা যদি পরিবারের দ্বিতীয় উপার্জনকারী হন এবং আর্থিকভাবে স্ত্রীর উপর নির্ভরশীল হন তবে বিষয়টি তার জন্য মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য এক ধরনের হুমকি হয়ে দাঁড়ায়।

সংসারে ক্ষমতা নিয়েও গবেষণায় আরো উঠে এসেছে। যে নারী স্বামীর তুলনায় বেশি আয় করেন তারা সংসারে ক্ষমতা নিয়েও দর কষাকষি করেন। এই দর কষাকষি এমন এক পর্যায় চলে যায় যে এক সময় তারা বিচ্ছিন্ন হয়ে বিবাহ বিচ্ছেদের পথে হাঁটেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here