প্রেসিডেন্সি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে মিলাদুন্নবী (স.) উদ্যাপন

স্কুলে মিলাদুন্নবী (সা.) অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি অধ্যাপক ড. মমতাজ উদ্দীন কাদেরী এবং অধ্যাপক মো. গিয়াস উদ্দিন তালুকদার।
স্কুলে মিলাদুন্নবী (সা.) অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি অধ্যাপক ড. মমতাজ উদ্দীন কাদেরী এবং অধ্যাপক মো. গিয়াস উদ্দিন তালুকদার।

পেসিডেন্সি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে জুনিয়র ও সিনিয়র ক্যাম্পাসে হামদ-নাত, ক্বেরাত, আজান প্রতিযোগিতা ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে ২০ নভেম্বর বুধবার অনুষ্ঠিত হলো পবিত্র মিলাদুন্নবী (সা.)।

সিনিয়র ক্যাম্পাসের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্কুল অধ্যক্ষ লে. কর্নেল (অব.) মো. জিয়াউদ্দিন আহমেদ বীর উত্তম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন স্কুল কো-অর্ডিনেটর মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন (মিডল ক্যাম্পাস) এবং স্কুল হেড সালমা আক্তার (জুনিয়র ক্যাম্পাস)। সিনিয়র ক্যাম্পাসে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মমতাজ উদ্দীন কাদেরী। জুনিয়র ক্যাম্পাসে উপাধ্যক্ষ ফিরোজ চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের অধ্যাপক গিয়াস উদ্দীন তালুকদার। প্রধান অতিথিগণ মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) এর জীবনাদর্শ তুলে ধরে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, নবীর জীবনাদর্শই আমাদের জীবনের একমাত্র আদর্শ হওয়া উচিত। নবীর আদর্শকে হৃদয়ঙ্গম করে জীবনাচরণ করলেই পৃথিবী সুন্দরময় হয়ে উঠবে। হযরত মুহাম্মদ (সা:) বিস্ময়কর বালক ছিলেন। তাঁর সততা, কর্তব্যপরায়ণতা ছোটবেলা থেকেই দৃশ্যমান হয়। তাঁর চারিত্রিক গুণাবলীর কারণেই গোটা আরব জাতি তাঁকে ভীষণ ভালোবাসতেন। অতিথিবৃন্দ আরোও বলেন, আমরা সন্তানদের ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, বানানোর স্বপ্ন দেখি কিন্তু কখনোই মূল্যবোধসম্পন্ন মানুষ তৈরির স্বপ্ন দেখিনা। আমাদের সবার উচিত আদর্শবান সন্তান গড়ে তোলা কারণ মৃত্যুর পর কর্মগুণই বেঁচে থাকবে দু’জাহানে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্কুল পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান জনাব আশরাফুল হক খান স্বপন, সিনিয়র স্কুল উপাধ্যক্ষ ই.ইউ.এম ইনতেখাব, স্কুল হেড মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন, শিক্ষার্থীবৃন্দ, অভিভাবকবৃন্দ ও শিক্ষক-শিক্ষিকাম-লী। প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ, মোনাজাত এবং অধ্যক্ষের সমাপনী বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here